কিভাবে ফেসবুক আইডি ব্লু ব্যাজ ভেরিফাই করা যায়

কিভাবে ফেসবুক আইডি ব্লু ব্যাজ ভেরিফাই করা যায়

 

বর্তমান বিশ্বে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোর মধ্যে ফেসবুক সব থেকে এগিয়ে আছে। ফেসবুকের জনপ্রিয়তা প্রতিদিনই বাড়ছে এর ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে। ফেসবুক আইডি খোলা খুব সহজ হওয়ায় যে কেউ ফেসবুক ব্যবহার করতে পারে। একই ব্যক্তি দেখা যায় একের অধিক ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে বিভিন্ন ছদ্মনাম দিয়ে। যার কারণে ফেসবুকে অসংখ্য ফেইক পরিচয়ের আইডির ভীড়ে প্রকৃত আইডির মালিক কে তা বুঝা যায় না। এই জন্য মেটা ফেসবুক আইডি ব্লু ব্যাজ ভেরিফাই চালু করেছে। 

ফেসবুক আইডি ব্লু ব্যাজ হলো ফেসবুক আইডি নামের পাশে একটি নীল রঙের টিক চিহ্ন থাকা যা অফিশিয়ালি সেট করা হয়। যার মাধ্যমে প্রকাশ পায় এই আইডিটি সঠিক মালিকের মাধ্যমে পরিচালিত হচ্ছে। মূলত ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এর কাছে আবেদনের মাধ্যমে এই ব্লু ব্যাজ ভেরিফাই করতে হয়। একই নামে একাধিক ব্যক্তি ফেসবুক প্রফাইল তৈরি করলেও আসল আইডি কোনটা তা খুব সহজে চেনা যাবে ব্লু ব্যাজ ভেরিফাই এর মাধ্যমে। 

বর্তমানে ফেসবুক শুধু ব্যক্তিগত প্রয়োজনে ব্যবহার করা হয় না সামগ্রিক অনলাইন ব্যবসায়ীক কাজেও ব্যবহার করা হয়।  অনলাইন ফেসবুক পেজ অহরহ থাকায় আসল ব্র‍্যান্ডের পেজ খুঁজে পেতে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করে তাই আইডি/ পেজ এর পাশে ব্লু ব্যাজ থাকলে একটা বিশ্বস্ত ব্র‍্যান্ডের প্ল্যাটফর্ম প্রকাশ করে থাকে। এর ফলে যে কেউ ফেইক প্রোফাইল তৈরি করে মানুষকে বিভ্রান্ত করতে পারবে না।

ফেসবুক আইডি ব্লু ব্যাজ ভেরিফাই করতে কি কি দরকার

ফেসবুক আইডি ব্লু ব্যাজ ভেরিফাই করার জন্য কিছু তথ্যের প্রয়োজন হয় যা অনেকেই জানে না। ফেসবুক আইডি  ব্লু ব্যাজ ভেরিফাই করার জন্য যা প্রয়োজন:

  • জাতীয় পরিচয় পত্র /
  • পাসপোর্ট /
  • ড্রাইভিং লাইসেন্স /
  • স্টুডেন্ট আইডি

সরকারি নিবন্ধিত ডকুমেন্টস গুলোর উপর ভিত্তি করে আপনার আইডির তথ্য গুলো একই হতে হবে। ভুল তথ্য বা মিথ্যে নাম, জন্ম তারিখ ঠিকানা ইত্যাদি জন্ম নিবন্ধন বা জাতীয় পরিচয় পত্রের সাথে মিল না থাকলে আইডি ব্লু ব্যাজ ভেরিফাই করা যাবে না। 

আইডি ব্লু ব্যাজ ভেরিফাই করার আগে ফেসবুক আইডি লগ ইন করার পর সেটিংস এ গিয়ে পাসওয়ার্ড চেক করে কনফার্ম করে নিতে হবে। টু স্টেপ ভেরিফিকেশন চালু না থাকলে চালু করে দিতে হবে। 

ব্লু ব্যাজ প্রাপ্তির জন্য ফেসবুকের নতুন নীতি ও পরিবর্তনের সাথে সম্পর্কিত তথ্য

বর্তমানে ফেসবুক বা মেটা বেশ কিছু নতুন নীতি চালু করেছে ফেসবুক আইডি ব্লু ব্যাজ ভেরিফাই করার জন্য। যেমন: 

  • ফেসবুক ব্লু ব্যাজ প্রাপ্তির জন্য আপনার আইডি অবশ্যই সঠিক তথ্য সম্বলিত হতে হবে। 
  • আপনার  প্রোফাইল অথনেটিক এবং ইউনিক কন্টেন্ট পাবলিশ করতে হবে। কোন ফেইক কন্টেন্ট/ভিডিও কপি করে ব্যবহার করা যাবে না। 
  • প্রফেশনাল বিজনেস রিলেটেড আইডি হলে রেগুলার আপনার প্রফেশন ভিত্তিক কন্টেন্ট দেয়ার চেষ্টা করবেন।
  • ১৮ বছরের কম বয়সী হওয়া যাবে না।  
  • আইডির  নাম এবং জন্ম তারিখ জাতীয় পরিচয় পত্রের সাথে মিল থাকতে হবে। 

এছড়া, প্রোফাইলে দেয়া তথ্য+কন্টেন্ট এমন হতে হবে যাতে সবার কাছে আপনি আসল ব্যক্তি হিসাবে চিহ্নিত হোন। ফেসবুক আইডি ফলোয়ার যত বেশি হবে তত সুবিধা তবে, অবশ্যই অটো ফলোয়ার নেয়া যাবে না। 

ফেসবুক আইডি ব্লু ব্যাজ পাওয়ার প্রক্রিয়া এবং নির্দিষ্ট উপায়

১. প্রথমে ফেসবুক আইডি লগ ইন করে Help Center অপশনে প্রবেশ করুন। 

২. এরপর সার্চ করুন Facebook badge verification, 

৩. তারপর সিলেক্ট করুন How do I request a blue verification badge? বিস্তারিত বর্ণনা লেখা থাকবে, নিচের দিকে দেখতে পাবেন লেখা রয়েছে fill in this form, এখানে ক্লিক করুন। আপনাকে নতুন একটা পেইজে নিয়ে যাবে।

৪. যদি ফেসবুক আইডি ব্লু ব্যাজ করতে চান তাহলে Profile সিলেক্ট করুন যদি পেইজ ব্লু ব্যাজ ভেরিফাই করতে চান তাহলে “page” সিলেক্ট করুন। 

৫. তারপর নিচের দিকে কিছু তথ্য ফিল আপ করার অপশন থাকবে।

  • Confirm authenticity:

এখানে আপনার ফেসবুক আইডিতে দেয়া নাম, জন্ম তারিখ, ঠিকানা জন্ম নিবন্ধন বা জাতীয় পরিচয় পত্র এর সাথে মিল রয়েছে এমন সার্টিফিকেট সংযুক্ত করুন। অবশ্যই সঠিক সার্টিফিকেট দিবেন নকল বা এডিট যুক্ত দিলে হবে না। আপনি সরকারি কর্মক্ষেত্রে যুক্ত থাকেন কিংবা ছাত্র/ ছাত্রী যে অবস্থানে আছেন তার সরকারি ডকুমেন্টস দিবেন। 

add document: choose file থেকে পাসপোর্ট / জন্ম নিবন্ধন / জাতীয় পরিচয় পত্র / স্টুডেন্ট আইডির ফাইল দিয়ে দিবেন। 

  1. confirm notability:

এখানে আপনার আইডি/ পেইজ পাব্লিকের কাছে কিসের জন্য জনপ্রিয়/ পরিচিত কি পেশায় আপনার আইডি সবার কাছে উন্মুক্ত তা যে পেশায় থাকবেন তা সিলেক্ট করুন। 

  1. country/region:

যে দেশের নাগরিক তা সিলেক্ট করুন। যেহেতু আমরা বাংলাদেশী, তাই বাংলাদেশ সার্চ করে সিলেক্ট করে দিন।

  1. audience (optional): 

এখানে আপনি চাইলে না দিলেও হবে তবে দিলে ভালো হয়। কেনো আপনার আইডি ভেরিফাই করতে চান, কারা আপনার আইডি ফলো করে, কেনো করে এসব বিষয়ে সঠিক তথ্য দিবেন। 

  1. also known as (optional):

এটাও অপশনাল বিষয়। আপনার নিজের কিংবা প্রতিষ্ঠানের যদি আলাদা কোন নাম থাকে তা সংযুক্ত করবেন। আপনার প্রোফাইল যদি জনপ্রিয় আইডি হয়ে থাকে কিংবা প্রতিষ্ঠানে  আপনার কিংবা আপনার প্রতিষ্ঠান নিয়ে সংবাদপত্রে প্রকাশিত নিউজ লিংক ৫ টি দিতে বলা হয় (যদি থাকে দিবেন)

ফরম পূরণ করার পর Send বাটনে ক্লিক করে সাবমিট করুন।

কিছুক্ষণ পর ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ফেসবুক ভেরিফাই আবেদন করার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে নোটিফিকেশন পাঠাবে ।

তারপর আপনার আবেদন রিভিউ করা হবে এবং সব তথ্য চেক করে আপনার আইডি যদি ফেসবুক কর্তৃপক্ষের কাছে ব্লু ব্যাজ ভেরিফাই করার যোগ্য মনে হয় তাহলে যত দ্রুত সম্ভব নোটিফিকেশন এর মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হবে।

আশা করি, কিভাবে ফেসবুক আইডি ব্লু ব্যাজ ভেরিফাই করা যায় তার বিস্তারিত গাইডলাইন পেয়েছেন, এবং এখন আবেদন করতে আপনার আর সমস্যা হবে না ইন-শা-আল্লাহ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shopping Cart
  • Your cart is empty.